• Breaking News

    সুদের ভয়ানক পরিনতি, সুদের ভয়াবহতা, সুদখোরের শাস্তি,

    সুদের ভয়াবহতাঃ
    আল্লাহ তা‘আলা বলেন,

    يَمْحَقُ اللهُ الرِّبَا وَيُرْبِي الصَّدَقَاتِ وَاللهُ لاَ يُحِبُّ كُلَّ كَفَّارٍ أَثِيمٍ.

    ‘আল্লাহ সূদকে সংকুচিত করেন এবং দানকে বর্ধিত করেন। আল্লাহ কোন অবিশ্বাসী পাপীকে পসন্দ করেন না’ (বাক্বারাহ ২৭৬)।

    এই আয়াত প্রমাণ করে যে, সূদ মানুষের অর্থকে ধ্বংস করে এবং দান মানুষের অর্থকে বৃদ্ধি করে। আল্লাহ অন্যত্র বলেন,

    يَاأَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا لاَ تَأْكُلُوا الرِّبَا أَضْعَافًا مُضَاعَفَةً وَاتَّقُوا اللهَ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ.

    ‘হে ঈমানদারগণ! তোমরা চক্রবৃদ্ধি হারে সূদ খেয়ো না। তোমরা আল্লাহ্কে ভয় কর, যাতে তোমরা সফলতা লাভ করতে পার’ (আলে ইমরান ১৩০)।

    আল্লাহ তা‘আলা অন্যত্র বলেন,

    يَاأَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا اتَّقُوا اللهَ وَذَرُوا مَا بَقِيَ مِنْ الرِّبَا إِنْ كُنتُمْ مُؤْمِنِينَ.

    ‘হে বিশ্বাস স্থাপনকারীগণ! আল্লাহ্কে ভয় কর এবং যদি তোমরা মু’মিন হও তবে সূদের মাধ্যমে যা বকেয়া রয়েছে তা বর্জন কর’ (বাক্বারাহ ২৭৮)।

    حدثنا أحمد بن يونس، حدثنا زهير، حدثنا سماك، حدثني عبد الرحمن بن عبد الله بن مسعود، عن أبيه، قال لعن رسول الله صلى الله عليه وسلم آكل الربا وموكله وشاهده وكاتبه ‏.‏

    ‘আবদুর রহমান ইবনু ‘আবদুল্লাহ ইবনু মাস‘ঊদ (রাঃ) হতে তার পিতার সূত্র থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি (‘আবদুল্লাহ) বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) সুদখোর, সুদদাতা, সুদের সাক্ষী ও এর দলীল লেখক সবাইকে অভিশম্পাত করেছেন।
    সহীহ : ইবনু মাজাহ (২২৭৭)
    সুনানে আবু দাউদ, হাদিস নং ৩৩৩৩
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

    حدثنا محمد بن الصباح، وزهير بن حرب، وعثمان بن أبي شيبة، قالوا حدثنا هشيم، أخبرنا أبو الزبير، عن جابر، قال لعن رسول الله صلى الله عليه وسلم آكل الربا وموكله وكاتبه وشاهديه وقال هم سواء ‏.‏

    জাবির (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) লা’নত করেছেন সুদখোরের উপর, সুদদাতার উপর, এর লেখকের উপর ও তার সাক্ষী দু’জনের উপর এবং বলেছেন এরা সবাই সমান। 
    সহিহ মুসলিম, হাদিস নং ৩৯৮৫ (ই. ফা. ৩৯৪৮, ই. সে. ৩৯৪৭)
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস


    حدثنا عبد العزيز بن عبد الله، قال حدثني سليمان بن بلال، عن ثور بن زيد المدني، عن أبي الغيث، عن أبي هريرة ـ رضى الله عنه ـ عن النبي صلى الله عليه وسلم قال ‏"‏ اجتنبوا السبع الموبقات ‏"‏‏.‏ قالوا يا رسول الله، وما هن قال ‏"‏ الشرك بالله، والسحر، وقتل النفس التي حرم الله إلا بالحق، وأكل الربا، وأكل مال اليتيم، والتولي يوم الزحف، وقذف المحصنات المؤمنات الغافلات ‏"‏‏.‏

    আবূ হুরায়রা (রাঃ) সূত্রে নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি বলেন, সাতটি ধ্বংসকারী বিষয় থেকে তোমরা বিরত থাকবে। সাহাবীগণ বললেন, হে আল্লাহর রাসূল! সেগুলো কী? তিনি বললেন, (১) আল্লাহ্‌র সাঙ্গে শরীক করা (২) যাদু (৩) আল্লাহ তা‘আলা যাকে হত্যা করা হারাম করেছেন, শরীয়ত সম্মত কারন ব্যতিরেকে তাকে হত্যা করা (৪) সুদ খাওয়া (৫) ইয়াতীমের মাল গ্রাস করা (৬) রণক্ষেত্র থেকে পালিয়ে যাওয়া এবং (৭) সরল স্বভাবা সতী-সাধ্বী মু’মিনাদের অপবাদ দেয়া।
    সহিহ বুখারী, হাদিস নং ২৭৬৬, মুসলিম ১৬৩
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

    حدثنا أحمد بن عمرو بن السرح، حدثنا ابن وهب، عن عمر بن مالك، عن عبيد الله بن أبي جعفر، عن خالد بن أبي عمران، عن القاسم، عن أبي أمامة، عن النبي صلى الله عليه وسلم قال ‏ "‏ من شفع لأخيه بشفاعة فأهدى له هدية عليها فقبلها فقد أتى بابا عظيما من أبواب الربا ‏"‏ ‏.‏

    আবূ উমামাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেনঃ কোন ব্যক্তি তার কোন ভাইয়ের জন্য কোন বিষয়ে সুপারিশ করার কারণে যদি সে তাকে কিছু উপহার দেয় এবং সে তা গ্রহণ করে তাহলে সে সুদের একটি বড় দরজা দিয়ে প্রবেশ করলো।
    হাসানঃ মিশকাত (৩৭৫৭)।
     সুনানে আবু দাউদ, হাদিস নং ৩৫৪১
    হাদিসের মান: হাসান হাদিস


    حدثنا سليمان بن حرب، حدثنا شعبة، عن عون بن أبي جحيفة، قال رأيت أبي فقال إن النبي صلى الله عليه وسلم نهى عن ثمن الدم، وثمن الكلب، وآكل الربا وموكله، والواشمة والمستوشمة‏.‏

    আওন ইবনু আবূ জুহাইফাহ (রহঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি বলেন, আমি আমার পিতাকে বলতে শুনেছি- নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) রক্তের মূল্য ও কুকুরের মূল্য নিতে নিষেধ করেছেন। আর তিনি সুদ গ্রহীতা, সুদ দাতা, উল্‌কি অঙ্কনকারী উল্‌কি গ্রহণকারী নারীদের উপর লা’নত করেছেন।
      সহিহ বুখারী, হাদিস নং ৫৯৪৫ , (আধুনিক প্রকাশনী- ৫৫১৩, ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৪০৮)
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

    হাদিস নম্বরঃ ৬৭১

    حدثنا محمد بن عبد الله، حدثنا اسرائيل، عن ابي اسحاق، عن الحارث، عن علي، قال: " لعن رسول الله صلى الله عليه وسلم صاحب الربا، واكله، وكاتبه، وشاهديه، والمحلل، والمحلل له حسن لغيره، وهذا اسناد ضعيف لضعف الحارث الاعور واخرجه البزار
     من طريق روح بن عبادة، عن اسرائيل، به. وقد تقدم برقم 

    আলী (রাঃ) বলেছেন, সুদদাতা, সুদ গ্রহীতা, সুদের
     লেখক, সুদের সাক্ষীদ্বয়, সুদকে হালাল প্ৰতিপন্নকারী এবং যার জন্য হালাল প্ৰতিপন্ন করা হয়- এদের সকলকে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অভিসম্পাত করেছেন।]
    [আবু দাউদ ২০৭৬, ২০৭৭, ইবনু মাজাহ ১৯৫৩, তিরমিযী ১১১৯, নাসাঈ ৮/১৪৭, মুসনাদে আহমাদ ৬৬০, ৬৭১, ৭২১, ৮৪৪, ৯৮০, ১২৮৯, ১৩৬৪]


    حدثنا عبد الله بن سعيد، حدثنا عبد الله بن إدريس، عن أبي معشر، عن سعيد المقبري، عن أبي هريرة، قال قال رسول الله ـ صلى الله عليه وسلم ـ ‏ "‏ الربا سبعون حوبا أيسرها أن ينكح الرجل أمه ‏"‏ ‏.‏


    আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, সুদের গুনাহর সত্তরতি স্তর রয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে ক্ষুদ্র স্তর হলো আপন মাকে বিবাহ (যেনা) করা।
    সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নং ২২৭৪
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস


    حدثنا عمرو بن علي الصيرفي أبو حفص، حدثنا ابن أبي عدي، عن شعبة، عن زبيد، عن إبراهيم، عن مسروق، عن عبد الله، عن النبي ـ صلى الله عليه وسلم ـ قال ‏ "‏ الربا ثلاثة وسبعون بابا ‏"‏ ‏.‏


    আবদুল্লাহ বিন মাসউদ (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেনঃ সুদের পাপের তিয়াত্তরটি স্তর রয়েছে। [২২৭৫]
    সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নং ২২৭৫
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস


    حدثنا العباس بن جعفر، حدثنا عمرو بن عون، حدثنا يحيى بن أبي زائدة، عن إسرائيل، عن ركين بن الربيع بن عميلة، عن أبيه، عن ابن مسعود، عن النبي ـ صلى الله عليه وسلم ـ قال ‏ "‏ ما أحد أكثر من الربا إلا كان عاقبة أمره إلى قلة ‏"‏ ‏.‏

    ইবনু মাসঊদ (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন, যে ব্যক্তি সুদের দ্বারা সম্পদ বাড়িয়েছে, পরিণামে তার সম্পদ হ্রাসপ্রাপ্ত হবেই। 
    সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নং ২২৭৯
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস


    حدثنا عبد الله بن يزيد، حدثنا سعيد بن أبي أيوب، قال حدثني أبو الأسود، عن ابن أبي عياش ـ واسمه نعمان ـ عن خولة الأنصارية ـ رضى الله عنها ـ قالت سمعت النبي صلى الله عليه وسلم يقول ‏ "‏ إن رجالا يتخوضون في مال الله بغير حق، فلهم النار يوم القيامة ‏"‏‏.‏

    খাওলাহ্‌ আনসারীয়া (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি বলেন, ‘আমি নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) -কে বলতে শুনেছি যে, কিছু লোক আল্লাহ্‌র দেয়া সম্পদ অন্যায়ভাবে ব্যয় করে, কিয়ামতের দিন তাদের জন্য জাহান্নাম নির্ধারিত।’
    সহিহ বুখারী, হাদিস নং ৩১১৮
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

    حدثنا نصر بن علي الجهضمي، حدثنا خالد بن الحارث، حدثنا سعيد، عن قتادة، عن سعيد بن المسيب، عن عمر بن الخطاب، قال إن آخر ما نزلت آية الربا وإن رسول الله ـ صلى الله عليه وسلم ـ قبض ولم يفسرها لنا فدعوا الربا والريبة ‏.‏


    উমার ইবনুল খাত্তাব (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি বলেন, সবশেষে সূদের আয়াত নাযিল হয়। কিন্তু আমাদেরকে বিস্তারিত ব্যাখ্যাদানের আগেই রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) ইনতিকাল করেন। অতএব সূদ এবং (সূদের) সন্দেহ সৃষ্টিকারী জিনিস পরিহার করো।  আহমাদ ২৪৮, ৩৫২। তাহকীক আলবানীঃ সহীহ। 
    সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নং ২২৭৬
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস


    عن مسروق قال قال عبد الله رضى الله  عنه : آكل الربا ومؤكله وشاهداه إذا علماه والواشمة والمؤتشمة ولاوى الصدقة والمرتد أعرابيا بعد الهجرة ملعونون على لسان محمد  صلى اللٰه عليه وسلم


    মাসরূক থেকে বর্ণিতঃ:
    আব্দুল্লাহ বিন মাসঊদ (রাঃ) বলেছেন, “সূদখোর, সূদদাতা, সূদের কারবার জেনেও তার দুই সাক্ষ্যদাতা, কোন অঙ্গ দেগে নকশা করে দেয় এবং করায় এমন মহিলা, যাকাত আদায়ে অনিচ্ছুক ও টালবাহানাকারী ব্যক্তি এবং হিজরতের পর মরুবাসী হয়ে ধর্মত্যাগী ব্যক্তি কিয়ামতের দিন মুহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এর মুখে অভিশপ্ত।” (আহমাদ ৩৮৮১, নাসাঈ ৫১০২, ইবনে খুযাইমা ২২৫০, আবূ য়্যা’লা ৫২৪১, ইবনে হিব্বান ৩২৫২, বাইহাক্বী ১৮২৪৭, সহীহ তারগীব ৭৫৭)
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস


    عن أبى أمامة عن النبى صلى اللٰه عليه وسلم قال من شفع لأخيه بشفاعة فأهدى له هدية عليها فقبلها فقد أتى بابا عظيما من أبواب الربا

    আবূ উমামাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন, “যে ব্যক্তি নিজ ভাইয়ের জন্য কোন সুপারিশ করল, অতঃপর তাকে কোন উপহার প্রদান করা হল এবং সে তা গ্রহণ করল, সে ব্যক্তি আসলে সূদের দরজাসমূহের এক বড় দরজায় উপস্থিত হল।” (আবূ দাঊদ ৩৫৪৩, সিলসিলাহ সহীহাহ ৩৪৬৫ নং)
    হাদিস সম্ভার, হাদিস নং ১৮৭১
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস


    حدثنا موسى بن إسماعيل، حدثنا جرير بن حازم، حدثنا أبو رجاء، عن سمرة بن جندب ـ رضى الله عنه ـ قال قال النبي صلى الله عليه وسلم ‏ "‏ رأيت الليلة رجلين أتياني، فأخرجاني إلى أرض مقدسة، فانطلقنا حتى أتينا على نهر من دم فيه رجل قائم، وعلى وسط النهر رجل بين يديه حجارة، فأقبل الرجل الذي في النهر فإذا أراد الرجل أن يخرج رمى الرجل بحجر في فيه فرده حيث كان، فجعل كلما جاء ليخرج رمى في فيه بحجر، فيرجع كما كان، فقلت ما هذا فقال الذي رأيته في النهر آكل الربا ‏"‏‏.‏

    সুদখোরের শাস্তিঃ
    সামুরাহ ইবনু জুনদুব (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:
    তিনি বলেন, নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, আজ রাত্রে আমি স্বপ্নে দেখেছি যে, দু’ব্যক্তি আমার নিকট আগমন করে আমাকে এক পবিত্র ভূমিতে নিয়ে গেল। আমরা চলতে চলতে এক রক্তের নদীর কাছে পৌঁছলাম। নদীর মধ্যস্থলে এক ব্যক্তি দাঁড়িয়ে আছে এবং আরেক ব্যক্তি নদীর তীরে, তার সামনে পাথর পড়ে রয়েছে। নদীর মাঝখানে লোকটি যখন বের হয়ে আসতে চায় তখন তীরের লোকটি তার মুখে পাথর খণ্ড নিক্ষেপ করে তাকে স্বস্থানে ফিরিয়ে দিচ্ছে। এভাবে যতবার সে বেরিয়ে আসতে চায় ততবারই তার মুখে পাথর নিক্ষেপ করছে আর সে স্বস্থানে ফিরে যাচ্ছে। আমি জিজ্ঞেস করলাম, এ কে? সে বলল, যাকে আপনি (রক্তের) নদীতে দেখেছেন, সে হল সুদখোর।
    সহিহ বুখারী, হাদিস নং ২০৮৫
    হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

    وعن عبد الله بن حنظلة غسيل الملائكة قال : قال رسول الله ﷺ : «درهم ربا ياكله الرجل وهو يعلم اشد من ستة وثلاثين زنية». رواه احمد والدراقطنى وروى البيهقى فى شعب الايمان عن ابن عباس وزاد : وقال : من نبت لحمه من السحت فالنار اولى به

    ‘আব্দুল্লাহ ইবনু হানযালাহ্ (রাঃ) হতে বর্ণিত। যিনি মালায়িকাহ্ (ফেরেশতাগণ) কর্তৃক গোসলপ্রাপ্ত হয়েছেন। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ যে ব্যক্তি জেনে শুনে সুদের কেবলমাত্র একটি রোপ্যমুদ্রা খায়, তার গুনাহ ছত্রিশবার যিনার চেয়ে বেশি হয়। (আহমাদ, দারাকুত্বনী)[1]

    আর বায়হাক্বী ‘‘শু‘আবুল ঈমান’’-এ হাদীসটি ইবনু ‘আব্বাস হতে বর্ণনা করেছেন। এতে অতিরিক্ত এ কথাও আছে যে, তিনি (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেনঃ যে ব্যক্তির শরীরের গোশ্ত/গোশত হারাম রিযক্বে গঠিত তার জন্য জাহান্নামই সর্বোত্তম।
    মিশকাতুল মাসাবীহ (মিশকাত) ২৮২৫,


    No comments